Wednesday , May 22 2019

‘অবসর’ নিয়ে মুখ খুললেন ইমরুল

বিশ্বকাপের গত দুই আসরে খেলেছেন ইমরুল কায়েস। সবশেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলেও ছিলেন তিনি। কিন্তু অভিজ্ঞ এই ওপেনারকে বাদ রেখেই মঙ্গলবার বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে খেলা ইমরুলকে বাদ দিয়ে রাখা হয়েছে লিটন দাস ও সৌম্য সরকারকে। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই বলতে থাকেন, এবার ক্রিকেট থেকে বিদায় নিবেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস।

তবে শেষ পর্যন্ত ভক্তদের ভুল প্রমাণ করলেন ইমরুল কায়েস। দল ঘোষণার পর এই প্রথম মুখ খুললেন তিনি। বুধবার সকালে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আবেগঘন এক বার্তা দিয়েছেন তিনি। যেখানে ইমরুল জানিয়েছেন, এখনই অবসর নিয়ে তার কোনো ভাবনা নেই। শুধু তাই নয়, যখনই সুযোগ পাবেন তখনই বাংলাদেশ ক্রিকেটকে কিছু দেওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন এই ব্যাটসম্যান।

ফেসবুকে ইমরুল বলেন, ‘ক্রিকেট আমার ভালোবাসা, আমি বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ পড়েছি তার মানে এই নয় যে আমি ক্রিকেট ছেড়ে দিব। আমার সামনে যখনই কোনো সুযোগ আসবে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে কিছু দেওয়ার জন্য আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করব।’

তবে ইমরুল কায়েস দুঃখও পেয়েছেন ভক্তদের এমন কাণ্ডে। তিনি বলেন, ‌‘আমি একটা জিনিস কয়েকদিন যাবৎ লক্ষ্য করছি। আমাকে নিয়ে অনেকে পোস্ট করছেন আমি নাকি ক্রিকেট থেকে রিটাইয়ার করছি। এটা সত্য আমার জন্য দুঃখজনক এই নিউজগুলো।’

নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে ইমরুল বলেন, ‘আমার ১১ বৎসরের ক্যারিয়ারে দেশ ও দেশের মানুষের জন্য ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কখনো আল্লাহর রহমতে সফল হয়েছি আবার কখনো ব্যর্থ হয়েছি। তবে যদি বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ১ পার্সেন্টও দিতে পেরে থাকি আমি নিজেকে সার্থক মনে করি।’

সকলের কাছে দোয়া চেয়ে ইমরুল বলেন, ‘সবাই পাশে থাকবেন এবং আমার জন্য দোয়া করবেন।

এর আগে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে এনামুল হক বিজয়ের বদলি হিসেবে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন কায়েস। ২০১৮ এশিয়া কাপেও বাংলাদেশের দলে পরিবর্তন এনে ইমরুল কায়েসকে দলে নেওয়া হয়েছিলো। জাতীয় দলের হয়ে ৭৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ৩২.০২ গড়ে চার সেঞ্চুরি এবং ১৬টি ফিফটির সাহায্যে দুই হাজার ৪৩৪ রান করেন। স্ট্রাইকরেট ৭১.১০।