June 17, 2019, 11:26 pm



বাজেটে সম্রাট মেইজীকে অনুসরণের প্রস্তাব

২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিদেশ থেকে শিক্ষক আনার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে উত্থাপিত বাজেট বক্তৃতায় এ প্রস্তাব করেন তিনি।

উত্থাপিত বাজেটে জাপানের সম্রাট মেইজীর উদাহরণ টেনে বলা হয়, সম্রাট মেইজী জাপানিদের এমনকি রাজপুত্রকেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোতে পাঠিয়ে পাশ্চাত্য শিক্ষা ও প্রযক্তিবিজ্ঞান আহরণ করার তাগিদ দেন। তিনি বুঝতে পারলেন জাপানে ছাত্রের অভাব নেই। অভাব হচ্ছে উপযুক্ত শিক্ষকের।

সম্রাট মেইজী পাশ্চাত্য দেশসমূহ থেকে বিভিন্ন প্রযুক্তিনির্ভর, প্রশিক্ষিত কয়েক হাজার শিক্ষককে জাপানে নিয়ে এলেন দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সময় উপযোগী করে তোলার জন্য। এরূপ প্রাজ্ঞ ও দূরদর্শিতার কারণে জাপান শুধু পশ্চিমাদের সমক্ষ হয়েই থাকেনি, বরং সারা বিশ্বে সবার আগে প্রথম শতভাগ শিক্ষিতের দেশ হওয়ারও গৌরব অর্জন করে।

উত্থাপিত বাজেটে আরও বলা হয়, দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করেছেন। দক্ষ জনশক্তি তৈরির উদ্দেশে শিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়ন, শিক্ষা ক্ষেত্রে বৈষম্য দূরীকরণ, গুনগত উৎকর্ষ সাধন ও শিক্ষা সম্প্রসারণের লক্ষ্য নির্ধারিত হয়েছে। আমাদের দেশেও সম্রাট মেইজীকে অনুসরণ করার সময় এসে গেছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ছাত্রের অভাব নাই। অভাব হচ্ছে প্রশিক্ষিত শিক্ষকের। এই সকল বিষয়ে শিক্ষা প্রদানের জন্য জাপানের সম্রাট মেইজীর মতো আমাদেরকেও আজকের প্রয়োজন মেটাতে বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে।’

অধিবেশনে অসুস্থ অবস্থায় অংশগ্রহণ করেন অর্থমন্ত্রী। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বাজেট উত্থাপনের অনুরোধ জানান তিনি। পরে স্পিকারের অনুমতি নিয়ে বাজেট উত্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, জাপানের সম্রাট মেইজী ১৮৬৮ থেকে ১৯১২ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৪৫ বছর দেশ শাসন করেন।এই সময়কালকে জাপানের আধুনিকায়নের যুগ হিসেবে অভিহিত করা হয়।শুধু তাই নয়, এই সময়ে বিশ্বের ইতিহাসে জাপান নিজেদেরকে একটি প্রথম সারির ক্ষমতাধর রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে। ১৯১২ সালে সম্রাট মেইজীর মৃত্যুর পর সম্রাট তাইশো সিংহাসনে আরোহণ করলে মেইজী যুগের অবসান হয়।

Facebook Comments





     এই বিভাগের আরও সংবাদ