মিলাদের খিচুড়ি খেয়ে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু, ৩০ জন হাসপাতালে ভর্তি

পাবনায় মিলাদের খিচুড়ি খেয়ে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় একই পরিবারের পাঁচজনসহ আরও অন্তত ৩০ জন অসুস্থ হয়ে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

পাবনার সদর উপজেলার দোগাছি ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা গেছে, নিহত স্কুলছাত্রীর নাম সুখি আক্তার (১২)। সে ওই গ্রামের সেলিম শেখের মেয়ে এবং শহীদ আহমদ রফিক উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

স্বজনরা জানান, শুক্রবার (৫ জুলাই) সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের শহিদ উদ্দিন মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেন। এ সময় গ্রামবাসীকে খিচুড়ি খাওয়ানো হয়। মিলাদের খিচুড়ি খাওয়ার পর ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হন মিলাদে অংশ নেয়া গ্রামবাসী।

অসুস্থদের মধ্যে ২৫ জনকে রবিবার সকালে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়টি নিশ্চিত করে পাবনা সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. রঞ্জন কুমার বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই স্কুলছাত্রী সুখি মারা যায়। এছাড়া আরও ২৪ জন চিকিৎসাধীন। অসুস্থরা ডায়রিয়া, বমি ও জ্বরে আক্রান্ত। একজনের অবস্থা সংকটাপন্ন। ধারণা করা হচ্ছে তারা খাবারে বিষক্রিয়া থেকে অসুস্থ হয়েছে। আমরা অসুস্থ রোগীদের মলের নমুনা আইসিডিডিআরবিতে পাঠিয়েছি। পরীক্ষার পর অসুস্থতার কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

পাবনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জানান, গত শুক্রবার বিকেলে বলরামপুর গ্রামের মৃত ইমান আলীর মৃত্যুবার্ষিকীর মিলাদ ছিল। এ উপলক্ষে এলাকাবাসীকে খিচুড়ি খাওয়ায় মৃতের আত্মীয়রা। খিচুড়ি খাওয়ার পর শুক্রবার রাত থেকে অসুস্থ হতে শুরু করেন অনেকে। শুরুতে বিষয়টি তেমন গুরুত্ব না দিলেও রবিবার সকাল থেকে অনেকে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের পাবনা সদর হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতালে আনার পথে সেলিম মিয়ার মেয়ে সুখি মারা যায়।

পাবনা জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। বলরামপুর ইউনিয়নে এরই মধ্যে একটি স্বাস্থ্য ক্যাম্প স্থাপন করে ভুক্তভোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আশা করি তারা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন।

Facebook Comments